হারবাল

অড়হর

অড়হর_গাছ

অড়হর একটি ওষুধী গাছ। এর রয়েছে অনেক গুণ। এই গাছ ব্যবহার করে নানাবিধ অসুখ থেকে আরোগ্য লাভ করার সুয়োগ রয়েছে। বিশেষ করে জন্ডিস নিরাময়ে কাজ করে। এই গাছের গুনাবলি তুলে ধরেছেন ড. তপন কুমার দে তার ‘বাংলাদেশের প্রয়োজনীয় গাছ-গাছড়ার’ বইয়ে।

জন্ডিস নিরাময়ে:-অড়হর পাতার রস দুই থেকে তিন চামস একটু লবন মিশিয়ে খাবার পর সামান্য গরম করে একবার খেতে হবে।

জিহবার ক্ষত:- অড়হরের কচি পাতা ভালো করে ধুয়ে চিবিয়ে চুষে খেলে মাড়ির জিহবার ক্ষত সেরে যায়।

কাশিতে:– অড়হর পাতার রস সাত থেকে আট চা চামচ একটু গরম করে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে খেতে হবে।ডায়াবেটিসে অড়হর পাতার রস একটু গরম করে খাবেন অথবা মূল আট থেকে ১০ গ্রাম ছেঁছে দুই কাপ পানিতে সেদ্ধ করে আধা কাপ ছেকে খেলে বেশি উপকার হয়।
সাপের দংশনে ও ফোলা –প্রদাহ অড়হর বিচি বাটা প্রলেপ ব্যবহার করা হয়।

পরিচিতি– অড়হর শাখা–প্রশাখাযুক্ত গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ।
এটি দুই থেকে আড়াই মিটার পর্যন্ত উচু হয়।
*গাছ শক্ত হলেও শাখা-প্রশাখা নরম।
*প্রতিটি বৃন্তে তিনটি করে পাতা থাকে।
*পাতাগুলি পাঁচ থেকে সাত সেন্টিমিটার পর্যন্ত লম্বা ও এক থেকে দেড় সেন্টিমিটার *চওড়া হয়।

অড়হর ডাল ও অড়হর গাছের যতসব উপকারীতা :
আয়ুর্বেদ মতে: অড়হর ডাল কষায়-মধুর,রস,শরীর শীতল করে,রুক্ষ, লঘু,মলরোধ করে,বায়ুজনক,মুখের কান্তি উজ্জল করে (বর্ণপ্রসাদক)। কফ,পিত্ত ও রক্তের দোষ নাশ করে।
* অড়হর ডাল খেলে শ্রবণশক্তির দোষ সারে,পিপাসা মেটে-শরীরে সব রকমের জ্বালা সারে।
* আগেই বলা হয়েছে অড়হর ডাল রুক্ষ-দই বা দূধ দিয়ে রান্না করলে এই রুক্ষতা নষ্ট হয়।
* পাতা সেদ্ধ করে জল দিয়ে কুচকুচি করলে দাঁতের ব্যথার উপশম হয়।
* জনডিস রোগীর পক্ষে অড়হরের পাতা খাওয়া(পাতা বেটে নিয়ে তার রস) খুবই   উপকারী।
*কাশি হলে এই পাতার ৭/৮ চামচ রস একটু গরম করে এক চামচ মধু মিশিয়ে খেলে কাশি কমে যায়।
ডাইবেটিকস হলে অড়হর পাতার রস করে সকালে বিকেলে এক কাপ করে খেলে ভাল উপকার পাওয়া যায়। তবে এর মূলের রস আট দশ গ্রাম থেঁতো করে অল্প পানিতে সিদ্ধ করে খেলে বেশি উপকার পাওয়া যায়।

অড়হর একটি ওষুধী গাছ।

এর রয়েছে অনেক গুণ। এই গাছ ব্যবহার করে নানাবিধ অসুখ থেকে আরোগ্য লাভ করার সুয়োগ রয়েছে। বিশেষ করে জন্ডিস নিরাময়ে কাজ করে। এই গাছের গুনাবলি তুলে ধরেছেন ড. তপন কুমার দে তার ‘বাংলাদেশের প্রয়োজনীয় গাছ-গাছড়ার’ বইয়ে।

১জন্ডিস নিরাময়ে:- অড়হর পাতার রস দুই থেকে তিন চামস একটু লবন মিশিয়ে খাবার পর সামান্য গরম করে একবার খেতে হবে।

জিহবার ক্ষত:- অড়হরের কচি পাতা ভালো করে ধুয়ে চিবিয়ে চুষে খেলে মাড়ির জিহবার ক্ষত সেরে যায়।

কাশিতে:– অড়হর পাতার রস সাত থেকে আট চা চামচ একটু গরম করে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে খেতে হবে।
ডায়াবেটিসে অড়হর পাতার রস একটু গরম করে খাবেন অথবা মূল আট থেকে ১০ গ্রাম ছেঁছে দুই কাপ পানিতে সেদ্ধ করে আধা কাপ ছেকে খেলে বেশি উপকার হয়।
সাপের দংশনে ও ফোলা –প্রদাহ অড়হর বিচি বাটা প্রলেপ ব্যবহার করা হয়।

পরিচিতিঃ– অড়হর শাখা–প্রশাখাযুক্ত গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ।
এটি দুই থেকে আড়াই মিটার পর্যন্ত উচু হয়।
*গাছ শক্ত হলেও শাখা-প্রশাখা নরম।
*প্রতিটি বৃন্তে তিনটি করে পাতা থাকে।
*পাতাগুলি পাঁচ থেকে সাত সেন্টিমিটার পর্যন্ত লম্বা ও এক থেকে দেড় সেন্টিমিটার *চওড়া হয়।

অড়হর ডাল ও অড়হর গাছের যতসব উপকারীতা :
আয়ুর্বেদ মতে: অড়হর ডাল কষায়-মধুর,রস,শরীর শীতল করে,রুক্ষ, লঘু,মলরোধ করে,বায়ুজনক,মুখের কান্তি উজ্জল করে (বর্ণপ্রসাদক)। কফ,পিত্ত ও রক্তের দোষ নাশ করে।
* অড়হর ডাল খেলে শ্রবণশক্তির দোষ সারে,পিপাসা মেটে-শরীরে সব রকমের জ্বালা সারে।
* আগেই বলা হয়েছে অড়হর ডাল রুক্ষ-দই বা দূধ দিয়ে রান্না করলে এই রুক্ষতা নষ্ট হয়।
* পাতা সেদ্ধ করে জল দিয়ে কুচকুচি করলে দাঁতের ব্যথার উপশম হয়।
* জনডিস রোগীর পক্ষে অড়হরের পাতা খাওয়া(পাতা বেটে নিয়ে তার রস) খুবই   উপকারী।
*কাশি হলে এই পাতার ৭/৮ চামচ রস একটু গরম করে এক চামচ মধু মিশিয়ে খেলে কাশি কমে যায়।
ডাইবেটিকস হলে অড়হর পাতার রস করে সকালে বিকেলে এক কাপ করে খেলে ভাল উপকার পাওয়া যায়। তবে এর মূলের রস আট দশ গ্রাম থেঁতো করে অল্প পানিতে সিদ্ধ করে খেলে বেশি উপকার পাওয়া যায়।

অড়হর ডাল ও অড়হর গাছের যতসব উপকারীতা :
আয়ুর্বেদ মতে: অড়হর ডাল কষায়-মধুর,রস,শরীর শীতল করে,রুক্ষ, লঘু,মলরোধ করে,বায়ুজনক,মুখের কান্তি উজ্জল করে (বর্ণপ্রসাদক)। কফ,পিত্ত ও রক্তের দোষ নাশ করে।
* অড়হর ডাল খেলে শ্রবণশক্তির দোষ সারে,পিপাসা মেটে-শরীরে সব রকমের জ্বালা সারে।
* আগেই বলা হয়েছে অড়হর ডাল রুক্ষ-দই বা দূধ দিয়ে রান্না করলে এই রুক্ষতা নষ্ট হয়।
* পাতা সেদ্ধ করে জল দিয়ে কুচকুচি করলে দাঁতের ব্যথার উপশম হয়।
* জনডিস রোগীর পক্ষে অড়হরের পাতা খাওয়া(পাতা বেটে নিয়ে তার রস) খুবই   উপকারী।
*কাশি হলে এই পাতার ৭/৮ চামচ রস একটু গরম করে এক চামচ মধু মিশিয়ে খেলে কাশি কমে যায়।
ডাইবেটিকস হলে অড়হর পাতার রস করে সকালে বিকেলে এক কাপ করে খেলে ভাল উপকার পাওয়া যায়। তবে এর মূলের রস আট দশ গ্রাম থেঁতো করে অল্প পানিতে সিদ্ধ করে খেলে বেশি উপকার পাওয়া যায়।

Leave a Reply